আজ ২১শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা এপ্রিল, ২০২০ ইং

চাঁদপুর জেলা পরিষদের সদস্যসহ ১০জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা, আটক ২- দৈনিক বাংলার অধিকার

বিশেষ প্রতিনিধিঃ চাঁদপুর জেলা পরিষদের সদস্য তুহিন খাঁনসহ ১০জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। শাহরাস্তি উপজেলার ড্রেজার ব্যবসায়ী নিজমেহার গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে কবির হোসেন বাদী হয়ে এ মামলা করেন।

মামলায় চাঁদপুর জেলা পরিষদের ১২নং ওয়ার্ডের সদস্য তুহিন খাঁন, রায়শ্রী দক্ষিণ ইউনিয়নের ঘুঘুরচপ গ্রামের সাবেক মেম্বার হাছান, একই গ্রামের সাবেক মেম্বার মনির, প্রসন্নপুর গ্রামের সালাউদ্দিন, একই গ্রামের আরিফ, আল আমিন, মনির হোসেন, সুমন, জয়নাল হাজারী, আহম্মদ নগর গ্রামের কালা বাসু’র নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাত ২০/৩০জনকে আসামি করা হয়েছে।

থানায় অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, সরকারিভাবে ডাকাতিয়া নদী খননের কাজ চলমান রয়েছে। মামলার বাদী কবির হোসেন ড্রেজার দিয়ে ওই নদী খননের কাজ করেন। গত ১২ জানুয়ারি ঘুঘুরচপ গ্রামে ডাকাতিয়া নদীতে নদী খনন করার সময় সংঘবদ্ধ চাঁদাবাজরা তার কাছে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অস্বিকৃতি জানালে তুহিন খানের নেতৃত্বে চাঁদাবাজরা তাকে মারধর করে। কবির হোসেন জীবন বাঁচাতে তাদেরকে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা প্রদান করেন। পরবর্তীতে গত ২ ফেব্রুয়ারী কালিবাড়ীতে সামছুল আলমের চাউলের দোকানে বাকী টাকার জন্য তাকে হত্যার হুমকী প্রদান করে। সেই দিন কবির হোসেন চাঁদাবাজদের আরো ২৪ হাজার টাকা চাঁদা প্রদান করেন।

মুঠোফোনে মামলার বাদী জানান, আমি জীবন বাঁচাতে আইনের আশ্রয় নিয়েছি। আমাকে প্রতিদিনই মেরে ফেলার হুমকী দেয়া হচ্ছে। আমি বাঁচার জন্য আপনাদের সহযোগিতা চাই।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত জেলা পরিষদের ১২নং ওয়ার্ডের সদস্য তুহিন খাঁন জানান, আমি শুনেছি আমার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে আমি জড়িত নই। যেখানে ঘটনা ঘটেছে আমি ওই স্থানে কখনোই যায়নি।

শাহরাস্তি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহ্ আলম (এলএলবি) মুঠো ফোনে জানান, ড্রেজার ব্যবসায়ী কবির হোসেনের কাছে চাঁদা চাওয়া ও হত্যার হুমকী প্রদর্শন করায় শাহরাস্তি থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় ২জনকে আটক করা হয়েছে।

     এই বিভাগের আরোও সংবাদ

আর্কাইভ