আজ ৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

লামায় ঝিরিতে পড়ে থাকা এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ- দৈনিক বাংলার অধিকার   

বেলাল আহমদ,চট্রগ্রাম ব্যুরো :দৈনিক বাংলার অধিকারঃ  বান্দরবানের লামায় ঝিরিতে পড়ে থাকা এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (২৬ জুলাই) বিকাল ৪টায় উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের ফারাংগা ব্রিজ সংলগ্ন নাপিত ঝিরিতে লাশটি পাওয়া যায়। স্থানীয়রা লাশটি দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে লামা থানা ও গজালিয়া ফাঁড়ির সঙ্গীয় পুলিশ সদস্যদের সাথে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, লামা সার্কেলের সদ্য যোগদানকৃত সহকারী পুলিশ সুপার মো. রেজাউনুল ইসলাম। এছাড়া লামা আর্মি ক্যাম্পের একটি সেনাবাহিনীর টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

লাশটি গজালিয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড মোহাম্মদ পাড়া এলাকার মৃত জাহের উদ্দিনের মেয়ে আম্বিয়া বেগম (৩২) এর বলে নিশ্চিত করেছেন নিহত নারীর বড় ভাই আসাদ মিয়া ও ছোট ভাই মো. মিনহাজ (মিন্টু)। তারা জানায়, সে দীর্ঘদিন মৃগী বা এপিলেপসি রোগের ভুগছিল। ভিক্ষাবৃত্তি ছিল তার পেশা। তাদের বোন স্বামী পরিত্যক্ত ও মানসিক রোগি ছিল।

নিহতের ছোট ভাই মো. মিনহাজ (মিন্টু) বলেন, একই বাড়িতে আলাদা ঘরে আমার বোনটি বসবাস করত। গতরাতে সে ঘরে ফিরে আসেনি এই বিষয়টি আমরা খেয়াল করিনি। সে পাড়ায় পাড়ায় হেঁটে ভিক্ষা করত। বৃহস্পতিবার বিকেলে ভিক্ষা শেষে ফারাংগা এলাকা হতে বাড়ি ফেরার পথে ঝিরি পার হওয়ার সময় পানিতে ডুবে তার মৃত্যু হয় বলে ধারনা করছি। শুক্রবার বিকেলে আমরা জানতে পারি আমাদের বাড়ি হতে ১ কিলোমিটার দক্ষিণে নাপিত ঝিরিতে তার লাশ পাওয়া গেছে। আমরা ঘটনাস্থলে এসে লাশ সনাক্ত করি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. মিজানুর রহমান বলেন, লাশের গায়ে কোথাও আঘাতে চিহ্ন নেই। ভিক্ষা করে তার সংসার চলত। তাদের সাথে কারো কোন বিবাদ ছিলনা। গজালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান বাথোয়াইচিং মার্মা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছেন।

লামা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মো. আবদুল্লাহ আল বাকী বলেন, লাশের প্রাথমিক সুরহাতাল করা হয়েছে। লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য শনিবার সকালে বান্দরবান জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হবে। এই বিষয়ে লামা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।

     এই বিভাগের আরোও সংবাদ