আজ ৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

শাস্ত্রীয় সঙ্গীতে পণ্ডিত নির্মলেন্দু চৌধুরীর ৮০ তম জন্মদিনে সঙ্গীতানুষ্ঠান-দৈনিক বাংলার অধিকার

যীশু সেন, স্টাফ রিপোর্টার:

সঙ্গীতগুরু পণ্ডিত নির্মলেন্দু চৌধুরীর ৮০তম জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভা ও শাস্ত্রীয় সঙ্গীতানুষ্ঠান গত ২ ও ৩ ডিসেম্বর সুরতীর্থ এর উদ্যোগে চট্টগ্রাম থিয়েটার ইনস্টিটিউটে (টিআইসি) অনুষ্ঠিত হয়। ১ম দিনে অনুষ্ঠানে উদ্বোধক ছিলেন চট্টগ্রাম আর্য্য সঙ্গীত সমিতির অধ্যক্ষ ওস্তাদ মিহির লালা। সম্মানিত অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম চারুকলা কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ প্রফেসর রীতা দত্ত, বিশিষ্ট সেতার শিল্পী মিহির কানুনগো। ২য় দিনে অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ বেতার চট্টগ্রাম এর আঞ্চলিক পরিচালক এস এম আবুল হোসেন, বাংলাদেশ শিশু একাডেমি চট্টগ্রাম এর শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা নারগীস সুলতানা, বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী ও প্রশিক্ষক অধ্যাপিকা মৃণালিনী চক্রবর্তী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব ও সংবর্ধেয় অতিথি ছিলেন সুরেন্দ্র সঙ্গীত বিদ্যাপীঠের উপাধ্যক্ষ ও সুরতীর্থ’র অধ্যক্ষ পণ্ডিত নির্মলেন্দু চৌধুরী। আবৃত্তিকার অরুণ ভদ্রের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন শিল্পী সুব্রত দাশ অনুজ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট বংশীবাদক ক্যাপ্টেন আজিজুল ইসলাম, শিল্পী ও সাংবাদিক শাহাবুদ্দীন খালেক ফারুক, তবলা শিল্পী প্রশান্ত ভৌমিক, সঙ্গীত শিল্পী রিষু তালুকদার। উপস্থিত ছিলেন জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী সমরজিৎ রায়, পলাশ দে, উৎপল দে (মিঠু), যীশু সেন প্রমুখ। দু’দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে শাস্ত্রীয় সঙ্গীত পরিবেশন করেন- সুব্রত দাশ অনুজ, রিষু তালুকদার, দীপ্ত সেন, রঞ্জন দত্ত, শ্যামল রাজ দত্ত, কে.পি দাশ বাবু, শিমুল দাশ, রাজীব মজুমদার, শ্রাবন্তী ধর, দোলন চক্রবর্তী, প্রিয়াঙ্কা দাশ অর্কি, প্রমা অবন্তী বিশ্বাস, অমিত চক্রবর্তী, অনুষ্ঠানে কেক কেটে সঙ্গীতগুরু পণ্ডিত নির্মলেন্দু চৌধুরীর ৮০তম জন্মদিন উদযাপন করা হয় এবং শিষ্যদের পক্ষ থেকে ৫০ হাজার টাকার চেক, সম্মাননা স্মারক ও বিভিন্ন উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, শাস্ত্রীয় সঙ্গীতে পণ্ডিত নির্মলেন্দু চৌধুরীর অনন্য ভূমিকা রয়েছে। বিভিন্নভাবে চট্টগ্রামের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে তাঁর ভূমিকা বিরাজমান। এই গুণী শিল্পীকে সংবর্ধনার মধ্যদিয়ে যথাযথ মূল্যায়ন করেছেন তাঁর শিষ্যরা। এজন্য সুরতীর্থ’র শিষ্যরা প্রশংসার দাবি রাখে।
ধ্রুপদ পরিবেশনায় ছিলেন অনিন্দিতা, প্রজ্ঞা লাবনী, শ্রাবন্তী, অমি, মুক্তা, প্রিয়ন্তী, স্নেহা, ঐশী, রক্তিম, রিমি, রিমন, স্বস্তিকা, দীপ্ত, অস্মি, পার্থ, পূর্ণ প্রমা, অমৃত, প্রমা, এপি, শান্তনু, দীপান্বিতা, শিঞ্জন সরকার, গৌরী নন্দী, শিল্পী নন্দী , সৈয়দা আনিকা ফেরদৌস, পৃথুলা বিশ্বাস, চন্দ্রিকা ও মৌমিতা ।
যন্ত্রে সহযোগিতায় ছিলেন হারমোনিয়ামে রিষু তালুকদার, সুব্রত দাশ অনুজ, লিটন সেন, দোলন চক্রবর্তী ও কে পি দাশ বাবু । তবলায় ছিলেন উৎপল দে মিঠু, পলাশ দে, সানি দে, আশীষ দে ও রতন দত্ত। বেহালায় শ্যামল দাশ, তানপুরায় অনিন্দিতা তালুকদার, প্রজ্ঞা লাবনী সিকদার, সৌমি চক্রবর্তী, মোমি চক্রবর্তী, রিয়া দাশ, প্রমা অবন্তী বিশ্বাস। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনায় ওস্তাদজির একনিষ্ঠ শিষ্য সুব্রত দাশ অনুজ, রিশু তালুকদার, উৎপল দে ও পলাশ দে।

     এই বিভাগের আরোও সংবাদ