কচুয়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ

0
734

কচুয়া(চাঁদপুর) প্রতিনিধি: চাঁদপুরের কচুয়ার তুলপাই গ্রামে রোববার রাতে স্থানীয় বাজার থেকে প্রাইভেট পড়ে বাড়ী ফেরার পথে মাহবুব আলম (১৬) নামের এক স্কুল ছাত্রকে মুখে কসটেপ পেছিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। মারধরের শিকার ওই দারাশাহী-তুলপাই গ্রামের মৃত: মোস্তফা মিয়ার ছেলে মাহবুব আলম দারাশাহী-তুলপাই উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রের্নীর মেধাবী ছাত্র। স্কুল ছাত্র মাহবুব আলমের মামা অ্যাডভোকেট মো. নাদিম তালুকদার বলেন, মাহবুব আলম চলতি বছর দশম শ্রের্নীর টেষ্ট পরীক্ষার্থী রোববার রাতে সে বিদ্যালয় সংলগ্ন বাজার থেকে প্রাইভেট পড়ে বাড়ী ফিরছিলো।পথিমধ্যে অজ্ঞাত একদল দূর্বত্ত তাকে পেছন থেকে আকম্মিক ভাবে মুখে কসটেপ পেছিয়ে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কেউ এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেন বলে তিনি দাবী করেন। এসময় তার ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা ছুঁটে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন স্কুল ছাত্র মাহবুব আলম জানান, কিছুদিন পূর্বে দারাশাহী-তুলপাই উচ্চ বিদ্যালয়ে ফুটবল খেলায় সিনিয়র-জুনিয়র নিয়ে বড় ভাইদের সাথে ঝগড়া হয় এবং এ নিয়ে থানায় অভিযোগ ও হয়েছিলো। ওই ঘটনায় কেউ বিরোধের জের ধরে তাকে একা পেয়ে হত্যা চেষ্টা করতে পারেন বলে সে দাবী করেন। তবে কারো সাথে তার বিরোধ নেই বলেও স্কুল ছাত্র মাহবুব আলম জানান। ঘটনার খবর পেয়ে রবিবার দুপুরে হাসপাতালে ছুঁটে যান দারাশাহী-তুলপাই উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. জহিরুল ইসলাম ও সহকারী প্রধান শিক্ষক মুহাম্মদ গোলাম সাদেক। এসময় ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে দ্রুত হামলাকারীদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানান তারা। এ ঘটনায় কচুয়ায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। খবর পেয়ে কচুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এদিকে স্কুল ছাত্র মাহবুব আলমের উপর হামলার ঘটনায় তীব্র-নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তার উপর হামলাকারীদের আইনের আওতায় আনার দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।