কচুয়ায় বিনা অপারাধে দু’ ভাইয়ের কারাভোগের প্রতিবাদে মানববন্ধন-দৈনিক বাংলার অধিকার

0
184

কচুয়া(চাঁদপুর)প্রতিনিধি ॥ চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার সাচার ইউনিয়নের শুয়ারোল গ্রামের মৃত: আয়েত আলী পাটোয়ারীর দুই ছেলে মো. হারুন পাটোয়ারী ও স্বপন পাটোয়ারীকে বিনা অপরাধে ভূয়া ওয়ারেন্টের মাধ্যমে ১৪ দিন কারাভোগের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করা হয়েছে। বুধবার দুপুর ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত স্থানীয় এলাকাবাসীর আয়োজনে উপজেলার শুয়ারোল- আটোমোড় সড়কে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। জানাগেছে, গত ১৭ জুলাই রাতে কচুয়া থানার এএসআই মো. জুয়েল সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে শুয়ারোল গ্রামের নিজ বাড়ী থেকে হারুন পাটোয়ারী ও তার ভাই স্বপন পাটোয়ারীকে আটক করে কচুয়া থানায় নিয়ে আসে। পরদিন তাদের চাঁদপুর জেল হাজতে প্রেরণ করলে বিনা অপরাধে ১৪ দিন কারাভোগের পর বান্ধরবন পাবর্ত্য জেলার বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে তারা মুক্তি পায়। মানব বন্ধনে এঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, ইউপি সদস্য আলমগীর হোসেন, ভূক্তভোগী হারুন পাটোয়ারী, স্বপন পাটোয়ারী, স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল মান্নান মুন্সী, নুরুল ইসলাম, ফিরোজ খান ও হাজী কাশেম আলী প্রমুখ। ভূক্তবোগী হারুন পাটোয়ারী ও মো. স্বপন পটোয়ারী জানান, বান্দরবন পার্বত্য জেলায় বিজ্ঞ আদালতে যে মামলা দেখানো হয়েছে মূলত আমরা ওই মামলার আসামী না। ওই জেলার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১লা জানুয়ারী ২০১৯ হতে ২৫ জুলাই পর্যন্ত ১৩২/২০১৯ নং জি.আর মামলা দাখিল হয়। কিন্তুু সি.আর ১৭৫/১৯ যে মামলায় আসামী করা হয় এ নামে কোন মামলার অস্থিত্ব নেই। ভূয়া ওয়ারেন্ট ইস্যু করে তাদের গ্রেফতার করে ১৪ দিন কারা বরণ করায় অপূরনীয় ক্ষতি ও সমাজে মান সম্মান ক্ষুন্ন হওয়ায় ও ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। অপরদিকে বিজ্ঞ আদালত ভবিষ্যতে হারুন পাটোয়ারী ও স্বপন পাটোয়ারীকে যে কোন মামলায় গ্রেফতারের পূর্বে তাদের এনআইডিকার্ড, নাগরিকত্ব সনদ পর্যালোচনা করে সতর্কতার সাথে চাঁদপুর পুলিশ সুপার ও কচুয়া থানার ওসিকে অগ্রসর হওয়ার নির্দেশ প্রদান করেন। এ ব্যাপারে কচুয়া থানার ওসি মো. ওয়ালি উল্যাহ অলি জানান, আমরা চাঁদপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের ইস্যুকৃত ওয়ারেন্ট মূলে তাদের আটক করে জেল হাজতে প্রেরন করি।