লামায় নদী হতে বৃদ্ধা নারীর লাশ উদ্ধার- দৈনিক বাংলার অধিকার   

0
64

 

বেলাল আহমদ,চট্রগ্রাম ব্যুরো :
বান্দরবানের লামায় মাতামুহুরী নদী হতে সায়েরা খাতুন (৬০) নামে এক বৃদ্ধা মহিলার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয়রা নদীর পানিতে লাশটি ভাসতে দেখে লামা থানাকে অবহিত করলে বুধবার সকাল ১১টায় লামা সদর ইউনিয়নের মেওলারচরস্থ মাতামুহুরী নদীর পাড় হতে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অপ্পেলা রাজু নাহা বলেন, লাশটি উদ্ধার করে প্রাথমিক সুরহাতাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য বান্দরবান জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এই বিষয়ে লামা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে। মামলা নং- ১৯/১৯, তারিখ- ২১ আগস্ট ২০১৯ইং।

লামা সদর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুর রহমান মনু বলেন, নদীর পারাপারের সময় কিছু মানুষ লাশটি ভাসতে দেখে আমাকে জানায়। আমরা স্থানীয় লোকজন নিয়ে নদীর পাড়ে যাই এবং লাশের বিষয়ে পুলিশকে অবহিত করি।

লাশটি লামা পৌরসভার পার্শ্ববর্তী চকরিয়া উপজেলার ৪নং বমু বিলছড়ি ইউনিয়নের পানিস্যাবিল এলাকার মৃত নজির আহমদের দ্বিতীয় স্ত্রী সায়েরা খাতুনের বলে নিশ্চিত করেছেন নিহতের ছেলে মনির আহমদ ও ভাগিনা মোজাফ্ফর আহমদ। মোজাফ্ফর আহমদ বলেন, সায়েরা খাতুন মানসিক ভারসাম্যহীন ও মৃগী রোগী ছিল। সে অতিরিক্ত ধুমপান করত। কখন কোথায় চলে যায় ঠিক ঠিকানা থাকে না। নদী পারাপারের সময় পানিতে ডুবে তার মৃত্যু হয়েছে বলে আমাদের ধারনা। গতকাল লামা পৌরসভার রাজবাড়ি এলাকায় এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিল সে। ফেরার পথে এই ঘটনা ঘটতে পারে।

লামা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক খালেদ মোশারফ বলেন, নিহতের স্বজনরা লাশ নিতে এসেছিল। ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে। অপমৃত্যু মামলাটির তদন্তকারী অফিসার লামা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক সালাউদ্দিন রাশেদ। সালাউদ্দিন রাশেদ বলেন, গতরাতের কোন এক সময় নদীতে ডুবে বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।